পুলিশ কমিশনারের বাণী

commissioner_message

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ এর পক্ষ থেকে প্রথমেই সম্মানিত রংপুর মহানগরবাসীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।  

প্রথমেই শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর সহধর্মিনী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট শাহাদত বরণকারী সকল শহীদ সদস্য; ’৭৫ এর ৩ নভেম্বর কারাগারে নির্মমভাবে নিহত জাতীয় চার নেতা এবং বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী বীর শহীদদের। আরও স্মরণ করছি ’৭১ এর ২৫ মার্চ শহীদ বীর পুলিশ সদস্যদের, যারা স্বাধীনতার প্রথম প্রহরে প্রবল প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলেন।

জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে ও জনগণের দোরগোড়ায় পুলিশি সেবা পৌঁছে দিতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালের ৮ জানুয়ারি রংপুর সফরকালে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ গঠনের প্রতিশ্রুতি দেন। এরই ধারাবাহিকতায় রংপুর মহানগরী এলাকার জন্য স্বতন্ত্র পুলিশ বাহিনী গঠনের সকল প্রক্রিয়া শেষে ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে নবগঠিত রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উদ্বোধন করেন। সীমিত জনবল ও স্বল্প পরিসরে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ তার যাত্রা শুরু করলেও তাঁর কাঁধে বর্তায় অপরিসীম দায়িত্ব ও কর্তব্য।  

নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও জমি অধিগ্রহণ, ভবন নির্মাণ ও মেরামতসহ প্রয়োজনীয় উন্নয়নমূলক কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বর্তমানে জমি অধিগ্রহণ ও ভবন নির্মাণ কাজের গতি আনয়ন করতে সার্বিক তদারকি বৃদ্ধি করা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সংস্থার সাথে নিয়মিতভাবে যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে দ্রুত ও ফলপ্রসূ উন্নয়নের তৎপরতা অব্যাহত আছে।  

চাঞ্চল্যকর মামলার রহস্য উদঘাটন ও অপরাধ দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে জনগণের প্রশংসা কুড়িয়েছে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ। গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টগুলোতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও সার্বিক নিরাপত্তা এবং ভেন্যু ব্যবস্থাপনায় যৌথভাবে সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের প্রতিটি থানায় চালু করা হয়েছে নারী, শিশু, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী সার্ভিস ডেস্ক, সার্ভিস ডেলিভারি ডেস্ক ও ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেন্টার। দৃশ্যমান স্থানে স্থাপন করা হয়েছে সিটিজেন চার্টার ও অভিযোগ বক্স। এসব ছাড়াও সরকারের প্রণীত প্রতিটি নির্দেশনা দ্রুত বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজ গতিশীল এবং কার্যকর করার ধারা অব্যাহত রয়েছে।  

জনসাধারণকে পুলিশিং ব্যবস্থায় সম্পৃক্ত করতে গঠন করা হয়েছে কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি। সমগ্র মহানগরকে ৫৫ বিটে বিভক্ত করে প্রতিটি বিটে অফিসার নিয়োজিত করা হয়েছে। জনসম্পৃক্ততার মাধ্যমে মাদক, জঙ্গিবাদ, যৌন হয়রানী, বাল্যবিবাহ ও গুজব প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও অপরাধ প্রতিরোধের ব্যবস্থা চলমান রয়েছে।  

পুলিশ সপ্তাহ-২০২২ এর স্লোগান ছিল-"দক্ষ পুলিশ, সমৃদ্ধ দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ"। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের পুলিশ ট্রেনিং স্কুলের মাধ্যমে সকল স্তরের পুলিশ সদস্যকে দক্ষ পুলিশ হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। সেই সাথে ট্রেনিং স্কুলের মডিউল গুলোকে আধুনিক ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ আর্কাইভটিতে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টস, স্যুভেনিয়ারসহ অন্যান্য প্রকাশ ও সংরক্ষণযোগ্য নথিপত্র সুসজ্জিতভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে নিয়মিতভাবে।  

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ গতানুগতিক পুলিশিং এর বাইরেও বিভিন্ন মানবিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে থাকে। বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি, স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, গাছের চারা বিতরণ, কম্বল বিতরণ, ত্রাণ বিতরণসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে সমাজের উন্নয়ন করে যাচ্ছে।  

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত স্বপ্নের সোনার বাংলা ও বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প-২০৪১ এর মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ গড়তে এবং জনসাধারণের প্রত্যাশা পূরণের জন্য নিরলসভাবে কাজ করছে বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি ইউনিট। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ তার ব্যতিক্রম নয়।

একটি সুশৃংখল ও সমৃদ্ধ নগরী বিনির্মানে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশকে অধিকতর সেবামুখি ও জনবান্ধব ইউনিটে পরিনত করার লক্ষে আমি রংপুর মহানগরীর সরকারি বেসরকারি সকল সংস্থা ও সর্বস্তরের জনসাধারণের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
বাংলাদেশ চিরজীবি হোক।